মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

অফিস সম্পর্কিত

: শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর এর জন্ম হয় ২০০২ সালে। তৎপূর্বে পাকিস্থান আমলে প্রার্থমিক শিক্ষা বিভাগের অধীন মহাপরিচালক, জন শিক্ষা অধিদপ্তরের প্রশাসনিক নিয়ন্ত্রনে প্রকৌশল শাখা হিসাবে সল্প সংখ্যক প্রকৌশলী উপদেষ্টা প্রকৌশলী হিসাবে কর্মরত ছিল। তাহারা প্রার্থমিক বিদ্যালয়ের যাবতীয় উন্নয়নমূলক কাজ তদারকী করতেন। তৎপর S.D.S.R.C নামে একাটি প্রকল্প প্রণয়ন করিয়া যুদ্ধ বিধস্থ বাংলাদেশ প্রার্থমিক বিদ্যালয়ের কাজ কর্ম পরিকল্পনা ও তদারকী অব্যাহত ছিল। উক্ত সময়ে কিছু প্রকৌশলীকে P.T.I প্রকল্পে নিয়োগ প্রদান করিয়া তাহাদেরকে জনশিক্ষা অধিদপ্তরে ন্যাসত্ম করা হয়। উক্ত প্রকৌশল শাখা বাংলাদেশের সমসত্ম প্রার্থমিক বিদ্যালয়ের উন্নয়নমূলক কাজকর্ম পরিচালনার জন্য যথেষ্ট ছিল না। ১৯৭২ সালে তৎকালীন রাষ্টপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান সাহেব তাঁহার প্রতিশ্রুতি মোতাবেক জাতীকে শিক্ষার দিকে এগিয়ে নেওয়ার জন্য প্রার্থমিক শিক্ষাকে জাতীয় করন করেন এবং প্রার্থমিক শিক্ষার মান উন্নতি করনের লক্ষে P.T.I  স্থাপন করেন। পরবর্তীতে শহিদ রাষ্টপতি জিয়াউর রহমান সাহেব রাষ্টীয় ক্ষমতায় আসেন। তখন তিনি উপলব্ধি করেন যে, দেশের মানুষকে শিক্ষিত করে গড়ে তুলতে না পারলে দেশ ও জাতী আরও ভিক্ষাবৃত্তির দিকে এগুবে, তখন তিনি U.P.E অর্থাৎ সার্বজনীন প্রার্থমিক শিকা উন্নয়ন প্রণয়ন করেন। শিক্ষার পাশাপাশি শিক্ষার পরিবেশ তৈরী করনের জন্য শিক্ষা ভবনের উন্নয়নমূলক কাজও হাতে নেন। উক্ত প্রকল্পের অধিন প্রার্থমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের অধিন রাজস্ব খাতে কিছু প্রকৌশলী নিয়োগ প্রদান করা হয়। উক্ত সময় হতে ১৯৮৭ সাল পর্যমত্ম অত্র ডিপার্টমেন্ট প্রার্থমিক শিক্ষা বিভাগের নির্মান কাজ তদারকী করিয়া আসিতেছিল। কিন্তু প্রার্থমিক শিক্ষা বিভাগের কিছু কর্মকর্তার স্বার্থে আঘাত পড়ায় এবং তাহাদের আচরনের কারনে প্রার্থমিক শিক্ষা অধিদপ্তর হইতে ‘‘ফ্যাসিলিটিজ ডির্পাটমেন্ট’’ নামে পৃথক করিয়া একটি প্রকৌশল শাখা সতন্ত্র হিসাবে গড়ার চিমত্মা ভাবনা চলে, ১৯৮৬ সালে  ফ্যাসিলিটিজ ডির্পাটমেন্ট নামে একটি বিভাগ শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধিনে আত্নপ্রকাশ করে। উক্ত সময়ে  ফ্যাসিলিটিজ ডির্পাটমেন্টের জনবল কম থাকায় মহাপরিচালক প্রার্থমিক শিক্ষা মন্ত্রণালয় অত্র ডির্পাটমেন্টের নিকট হইতে তাহাদের উন্নয়ন মূলক কাজকর্ম L.G.E.D তে ন্যাসত্ম করেন। উক্ত সময়ে অত্র ডির্পাটমেন্ট মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষার বিভিন্ন প্রকল্প, যেমন-বিজ্ঞান শিক্ষা উন্নয়ন প্রকল্প, মাধ্যমিক পর্যায়ে কারিগরী শিক্ষা উন্নয়ন প্রকল্পের উন্নয়ন মূলক কাজ সুন্দর ও সুষ্টভাবে সম্পাদন করেন। উক্ত সময়ে মহাপরিচালক, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তররে কাজকর্ম P.W.D দ্বারা করানো হতো এবং সেই কারনে P.W.Dকে উচ্চ অংকের সার্ভিস চার্জ প্রদান করা হতো। উক্ত সময়ে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের চিমত্মা ভাবনা যে, তাহাদের একটি পূর্ণাঙ্গ প্রকৌশল শাখা স্থাপন করা প্রয়োজন। যাহাতে উক্ত ডির্পাটমেন্টের উচ্চ অংকের টাকা সাশ্রয় হয়। এরই পরিপেক্ষিতে তাহারা  ফ্যাসিলিটিজ ডির্পাটমেন্টকে পূর্ণাঙ্গরূপ দানের চেষ্টা অব্যাহত রাখেন। প্রকল্পের কাজ সমাপ্তির পর দীর্ঘদিন সময় অর্থাৎ ৪২ মাস পর্যমত্ম কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের বেতন ভাতাগি থেকে বঞ্চিত থাকেন। ১৯৮৭ সাল থেকে ২০০০ সাল পর্যমত্ম অক্লামত্ম পরিশ্রমের পর ২০০২ ইং সালে প্রতিষ্ঠিত হয় শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর।

ছবি


সংযুক্তি


সংযুক্তি (একাধিক)



Share with :

Facebook Twitter